Thursday, February 28, 2019

ঢাকা দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন ২০১৯


আজ   ঢাকা দুই সিটি নির্বাচন
আজ ঢাকা দুই সিটির নির্বাচন অনুষ্টিত হচ্ছে ।সকাল ৮.০০ থেকে ভোট গ্রহন শুরু হয়েছে ভোট গ্রহন চলবে বিকাল ৪.০০ পর্যন্ত ।রাজধানীর বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে ভোটারের উপস্থিতি খুব কম দেখা যায়।বেলা বাড়ার সাথে সাথে কিছু ভোটারের উপস্থিতি বেড়েছে এবং বিভিন্ন কাউন্সিলর প্রার্থীদের সমর্থকরা কেন্দ্রের সামনে ভোটারদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করতে দেখা গেছে।ঢাকা উত্তরের নবগঠিত ৫০নং ওয়ার্ডে ৬ জন কাউন্সিলর প্রার্থী নির্বাচনে অংশ গহন করছেন। সবাই আওয়ামীলিগ পন্থি ।এ নির্বাচনে দেশের একটি বড় রাজনৈতিক দল বিএনপি অংশ গ্রহণ না করায় এ নির্বাচন প্রতিদ্বন্দিতা মূলক মনে হচ্ছে না।


ঢাকা উত্তরের সাবেক মেয়র আনিসুল হকের মৃত্যুর কারণে উপনির্বাচন  এবং নবগঠিত ওয়ার্ডে কাউন্সিলর এবং সংরক্ষিত মহিলা আসনে নির্বাচন হচ্ছে।শক্তিশালি কোন প্রতিদ্বন্দ্বি না থাকায় মেয়রপদে আওয়ামীলিগ প্রার্থী আতিকুল ইসলামের জয় প্রায় নিশ্চিত।

ডিএনসিসির মেয়র পদে উপনির্বাচন, নতুন ১৮টি ওয়ার্ডের সাধারণ নির্বাচন, দুইটি ওয়ার্ডে উপনির্বাচন এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটির (ডিএসসিসি) নতুন ১৮টি ওয়ার্ডের সাধারণ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ চলছে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার যা বললেন

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসিকে এম নুরুল হুদা বলেছেননির্বাচন কমিশন (ইসিভোটের পরিবেশ তৈরি করে তারা ভোটার আনে না তাই আজ দুই সিটির নির্বাচনে ভোটারের উপস্থিতি যে কমএর দায় ইসির না দায় প্রার্থী  রাজনৈতিক দলগুলোরই

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর উত্তরার আইইএস স্কুল অ্যান্ড কলেজের ভোটকেন্দ্রে নিজের ভোট দিয়ে সাংবাদিকদের সামনে সিইসি এসব কথা বলেন। এ সময় তাঁর সঙ্গে এই নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল কাসেম উপস্থিত ছিলেন।

ভোটারের উপস্থিতি কম: ডিএমপি কমিশনার

ডিসিসি নির্বাচনের ভোটের দিন সাংবাদিক ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে ভোটারের উপস্থিতি কম বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া। আজ বৃহস্পতিবার বাড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।


ডিএমপি কমিশনার বলেন, নিরাপত্তার ঝুঁকি নেই। সাংবাদিক ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে পর্যবেক্ষণ করে দেখেছি, ভোটারের উপস্থিতি কম।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা বলেছেন, নির্বাচন কমিশন (ইসি) ভোটের পরিবেশ তৈরি করে। তারা ভোটার আনে না। তাই আজ দুই সিটির নির্বাচনে ভোটারের উপস্থিতি যে কম, এর দায় ইসির না। দায় প্রার্থী ও রাজনৈতিক দলগুলোরই।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর উত্তরার আইইএস স্কুল অ্যান্ড কলেজের ভোটকেন্দ্রে নিজের ভোট দিয়ে সাংবাদিকদের সামনে সিইসি এসব কথা বলেন। এ সময় তাঁর সঙ্গে এই নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল কাসেম উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপির প্রতিক্রিয়া

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেছেন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন উপনির্বাচনের ভোট আগের রাতে হয়ে গেছে। এখন শুধু আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করা হচ্ছে। দিন শেষে ফল ঘোষণা করা হবে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে রুহুল কবির রিজভী এ কথা বলেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, একটি কথা আছে, সেটি হলো ছায়ার সঙ্গে যুদ্ধ করে গাত্র হলো ব্যথা। আমরা কার সঙ্গে যুদ্ধ করব? তিনি বলেন, নির্বাচনে কোনো প্রতিযোগিতা নেই। প্রতিযোগিতাহীন এমন নির্বাচনে আমরা কেন অংশ নেব?

সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে রিজভী বলেন, গণতন্ত্রের উত্তাপ, প্রতিযোগিতা হত্যা করেছে সরকার। প্লাস্টিক সার্জারি করে নিজেদের চেহারা ঢাকতে চেষ্টা করছে। কিন্তু 'স্বৈরশাহীর নির্মম-নিষ্ঠুর' চেহারা বেরিয়ে আসছে।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেছেন রাজনৈতিক দলগুলো নির্বাচনে অংশ না নেওয়া কমিশনের জন্য অস্বস্তিকর। সিইসি তাঁর এই বক্তব্যে স্বীকার করে নিলেন যে জনগণ ও দেশের রাজনৈতিক দলগুলোর কাছে তাঁদের কোনো গ্রহণযোগ্যতা নেই। যে দেশে ভোটের আগের রাতেই ব্যালট পেপারে সিল মেরে ব্যালট বাক্স ভর্তি করা হয়, ভোট চুরি হয়, সেই নির্বাচন কমিশন ধিক্কার ছাড়া অভিনন্দন পাওয়ার যোগ্য নয়।

রিজভী বলেন, 'জনগণকে ভোট প্রদান থেকে প্রতারিত করা হয়েছে। সিইসির আজ্ঞাবহ জীবনদর্শনের জন্য গণতন্ত্র এখন রাহুগ্রস্ত। ৩০ ডিসেম্বরে ভোট চুরির মহোৎসব করে একটা অবৈধ শাসকগোষ্ঠীকে রাষ্ট্রক্ষমতায় বসিয়ে দেশকে গভীর সংকটে নিপতিত করার মূল হোতাই হচ্ছেন সিইসি কে এম নুরুল হুদা। কাজেই জনগণ এবং রাজনৈতিক দলগুলো এখন নির্বাচন কমিশন থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে।  visit our site for health and fitness.


2 comments: